২০ টি ইউনিক বিজনেস আইডিয়া - Unique Business Ideas 2022

 2022 সালের ব্যবসায়িক ধারনার অনুপ্রেরণা খুঁজছেন? তাহলে এই 20 ভিন্ন ভিন্ন ব্যবসায়িক ধারণা আপনাকে ভিন্ন ভিন্ন ব্যবসায়িক ধারনা আপনাকে ভিড় থেকে আলাদা হতে সাহায্য করবে। 



বর্তমানে মার্কেটপ্লেসে একটি প্রচলিত ব্যবসায়িক ধারণা  নিয়ে ভাবা সহজ কিন্তু একটি ভিন্ন আইডিয়া, ব্যবসায়িক ধারণা নিয়ে আসতে সাহস এবং ধৈর্যের প্রয়োজন। নিজেকে জিজ্ঞেস করুন কোন উদ্ভবনি ব্যবসার ধারণাগুলি আপনার নিজের জীবন থেকে অনুপস্থিত। একবার আপনি একটি সমস্যা চিহ্নিত করে  তার সমাধান তৈরি করে ফেললে, আপনার ধারণা একটি বৃহৎ শ্রোতাদের সাহায্য করতে পারে, একটি বড় চাহিদা পূরণ করতে পারে এবং একটি সফল ব্যবসার দিকে নিয়ে যেতে পারে। চলুন তাহলে দেখে নেই 20 টি ইউনিক বিজনেস আইডিয়া - (Unique Business Idea 2022)




ইউনিক বিজনেস আইডিয়া ২০২২

ই-কমার্স বিজনেস

বর্তমান সময়ে অনলাইন ব্যবসা করলে প্রচুর লাভজনক ব্যবসা হিসেবে পরিণত হয়েছে।ব্যবহার করে আপনার নিজেরাই একটি ই-কমার্স সাইট তৈরি করতে পারে। এক্ষেত্রে আপনি একটি বিশেষ Product বাছাই করে সেই product বিক্রি করার উদ্দেশ্যে একটি ই-কমার্স সাইট বা Online  Store তৈরি করতে পারেন৷ 

এছাড়া 5 থেকে 10 হাজার টাকা খরচ করে একটি ভালো  Web developr থেকেও একটি ই-কমার্স সাইট  তৈরি করিয়ে নিজের একটি অনলাইন দোকান শুরু করতে পারেন। যে কোন একটি Niche/ products এর উপর লক্ষ্য রেখে ই- কমার্স ব্যবসা শুরু করতে পারলে সেটা অধিক জনপ্রিয় হওয়ার সুযোগ থাকে।


কোর্সিং সেন্টার

কোচিং সেন্টার যেখানে অর্থের বিনিময়ে শিক্ষা, জ্ঞান, অভিজ্ঞতা, ধারণা, কৌশল,  প্রয়োগ  ইত্যাদি শিখানো হয় তাকেই সাধারণত coursing center বলে। আপনি যদি একজন শিক্ষক বা মেধাবী জ্ঞানী ব্যক্তি হয়ে থাকেন এবং আপনার যে বিষয়ের ওপর এক্সপেরিয়েন্স রয়েছে সে বিষয়ের উপর একটি কোসিং সেন্টার সেখানে মানুষের নিকটে আপনার শিখার বিনিময়ে অর্থের উপর্জন করতে পারবেন।

আফিলিয়েট মারকেটিং

এই ব্যবসাটির নাম হয়ত আপনি প্রথম শুনছেন কিন্তু এই ব্যবসা করে অনেকেই অনেক টাকা ইমকাম করছে৷ এই বিজনেস এ আপনি একটি কোম্পানির পন্য অন্যকে বিক্রি করতে পারলে কোম্পানি আপনাকে সেই  টাকার এর উপর একটি কমিশন দিবে৷ ধরুন যদি কোন কোম্পানি ৫% কমিশন দেয় তাহলে সেই কোম্পানির ৫০০০ টাকার পন্য বিক্রয় করে দিতে পারলে আপনাকে ২৫০ টাকা কমিশন দেয়া হবে। ইন্ডিয়াতে অনেক লোক Flipkart ও Amazon এর পণ্যের ওপর অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করে খুব ভালো মুনাফা অর্জন করছে। এই বিজনেসটা আপনি ঘরে বসে একা আইনের মাধ্যমে করতে পারেন। 


ফ্রিল্যান্সিং

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং এর সাথে অপরিচিত আছে এমন মানুষের সংখ্যা খুবই কম। আপনার কোন দক্ষতা কে বিক্রি করে টাকা আয় করাই হলো ফ্রিল্যান্সিং। এবং ফ্রিল্যান্সিংয়ের ক্ষেত্রে সারা বিশ্বের মানুষের কাছেই আপনি আপনার সে দক্ষতা দিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন যেহেতু এটি পুরোটাই অনলাইন ভিত্তিক। মজার ব্যাপার হল এই ব্যবসায় আপনাকে কোন টাকা বিনিয়োগ করতে হবে না। তবে কোটি কোটি টাকা ইনকাম করার সম্ভাবনা রয়েছে এই ব্যবসায়।  


ওয়েব ডিজাইন

এই ব্যবসায় আইডিয়াটি সত্যিই অনেক আলাদা এবং ইউনি কেননা এই ধরনের web designing agency কোকো কম রয়েছে যা সঠিক দামে সঠিকভাবে ওয়েব ডিজাইন করে থাকে। আজকাল প্রায় প্রত্যেক ব্যবসা অনলাইনে সক্রিয় থাকার উদ্দেশ্যে অবশ্যই রাখেন এবং যার জন্য তাদের একটি কোম্পানি ওয়েবসাইট এর প্রয়োজন। তাই ওয়েবসাইটের ব্যবসায় যদি আপনি শুরু করেন  তাহলে অবশ্যই এই ব্যবসা অনেকটা লাভজনক ব্যবসা হিসেবে প্রমাণিত হতে পারে।


ফেসবুক এ্যাড 

Facebook হল বিশ্বজুড়ে একটি জনপ্রিয় Social media platform যার মাধ্যমে যে কেউ অনেক সহজেই নিজের brand, business,  product, services এবং content ইত্যাদি' প্রচার করতে পারেন।কেননা ফেসবুক জুড়ে বিভিন্ন বয়সের বিভিন্ন বিষয়ে রুচি রাখা লোকেরা সক্রিয় থাকেন। তাই আপনি ফেসবুক এড এর মাধ্যমে ফেসবুক মার্কেটিং সঠিকভাবে করতে পারেন তাহলে ব্যবসায় সাফল্য সম্ভব।   


ব্লগিং ব্যবসা

নিজের বা অন্য কারো ওয়েবসাইটে কোন বিষয়ে লেখালেখি করাই হল ব্লগিং৷ আপনি এখন যেই লেখাটি পড়ছেন এটিও কিন্তু একটি ব্লগ। এবং আমি এই ব্লগে লিখালিখি করি। আপনি খেয়াল করে দেখবেন আমার এই ব্লগে কিছু অ্যাড দেখানো হচ্ছে আপনাকে যা থেকে আমি ইনকাম করে থাকি। এছাড়াও আরো অনেক উপায় একটি ব্লগ থেকে ইনকাম করা যায়।


যোগ ব্যায়াম প্রশিক্ষণ

সুস্থ ও ফিট থাকার উপায় আমরা প্রত্যেকেই জানি কিন্তু ঘরে বসে সুস্থ বা ফিট থাকা যায় না।আর তাই এখনকার সময়ে প্রত্যেকে একটি ভালো Fitness training club, gym ইত্যাদিতে গিয়ে নিজেকে সুস্থ রাখার চেষ্টা করেন৷ তাই বর্তমানে আধুনিক শহরে একটি fitness Centre বা  gym চালু করতে পারলে লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে এ ব্যবসায় investment  ভালো পরিমাণে করতে হয়। কেননা gym করার জন্য প্রচুর ইকুইপমেন্ট রয়েছে যেগুলোর দাম অনেক বেশি হয়ে থাকে। 



ওয়েডিং ফটোগ্রাফি

আমাদের মধ্যে এমন অনেকেই আছেন যারা ছবি তুলতে খুব ভালোবাসেন। ছবি তোলায় তাদের শখ। বর্তমানে এই ছবি তোলাও একটি ব্যবসা হিসেবে দাঁড়িয়েছে। যা থেকে অনেকেই অনেক ভাল আয় করছে। আমাদের দেশে প্রতি নিয়তই কন্যা কোন বিয়ে অনুষ্ঠান হচ্ছে যেসব অনুষ্ঠানের মুহূর্তগুলোকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য ওয়েডিং ফটোগ্রাফার দের হায়ার করে ছবি তোলা হয়।  আপনি যদি ফটোগ্রাফি ভালো পারেন তাহলে কিছু স্যাম্পল ফটোগ্রাফি করে আজই শুরু করে দিতে পারেন আপনি এই ব্যবসা।



ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট

ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট তরুণদের কাছে আরও একটি জনপ্রিয় ব্যবসা। প্রতিনিয়তই নানা ধরনের অনুষ্ঠান হচ্ছে সেসব অনুষ্ঠানকে আরও আকর্ষণীয় করার জন্য  প্রয়োজন হচ্ছে সাজসজ্জার। আসছে এসব সমস্যা যার কাজ করে থাকে ইভেন্ট ম্যানেজমেন্টরা। আপনি নানা ধরনের স্যাম্পল দেখাবেন এবং ক্লায়েন্টের পছন্দ স্যাম্পল অনুযায়ী সাজাবেন। সাজানোর উপকরণ আপনাকে আগেই কিনে রাখতে হবে এবং ওই একই উপকরণ দিয়ে আপনি বারবার সাজাতে পারবেন যার জন্য এই ব্যবসাতে মুনাফা অনেক বেশি।    


ইন্টেরিয়র ডিজাইনার

Interior designing এই ব্যবসা বর্তমানে প্রচুর লাভজনক ব্যবসা হিসেবে খ্যাতি অর্জন করছে। বর্তমানে যাদের কাছে টাকা আছে তার নিজের ঘর সাজানোর জন্য বাইরের থেকে ভালো একটি ইন্টেরিয়র ডিজাইনিং এর সঙ্গে চুক্তি করেন। ইন্টেরিয়র ডিজাইনার হিসেবে আপনাকে বা আপনার টিম দ্বারা একটি ঘরকে সুন্দর করে সাজাতে হবে। আপনি চাইলে এই কাজটি একা ও করতে পারবেন না একটি টিম নিয়েও কাজটি করতে পারবেন। 
সত্যি বলতে এটা একটি creative business idea যা সবার দ্বারা সম্ভব নয়। 


টি স্টল

আপনি চাইলে অল্প টাকায় লাভজনক ব্যবসা শুরু করতে পারেন। এর জন্য আপনাকে প্রথমে একটি মনোরম পরিবেশ দরকার যেখানে মানুষের সমাগম থাকবে। এর পরে দোকানে সুন্দর সাজসজ্জা করতে হবে যাতে মানুষের চোখে পড়ে। এর আপনার আইটেম গুলো রাখবেন যেমনঃ হরেক রকমের চা, Green tea, milk tea,  লেবু চা ইত্যাদি। 


কেক এবং ব্রেড মেকিং
বর্তমানে কেক ও ব্রডের চাহিদা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে।  এ ব্যবসাটি করার জন্য আপনাকে কেক ও ব্রেড তৈরি করার পদ্ধতি সম্পর্কে অবগত হতে হবে। এখন প্রায় সারাবছরই কেক ও গ্রেড এর চাহিদা থাকে। কিছু কিছু সময় তার চাহিদা আরো বেড়ে যায়। বাজার থেকে প্রয়োজনীয় সামগ্রী ক্রয় করে এনে সমস্ত উপকরণ মিশ্রণ করে ব্রেড রুটি তৈরি করে তা বাজারে supply করতে পারেন। আপনার মার্কেট রিসার্চ এর ওপর আপনার সাফল্য নির্ভর করছে। কেক তৈরি করার পদ্ধতি অবগত না থাকলে আপনি চাইলে ইউটিউব দেখে দেখে শিখে নিতে পারেন।


ফাস্ট ফুড স্টল

আপনি যদি খুব ভালো পাসওয়ার্ড বানাতে পারেন বা পাসপোর্ট সম্পর্কে আমরা যদি? ভালো জ্ঞান থাকে তাহলে এই ব্যবসাটি আপনার জন্য। এই ব্যবসাটি আপনি বাড়িতে বসেই করতে পারেন।  বাড়িতে তৈরি করে সেটা অনলাইনের মাধ্যমে সেল দিতে পারেন। আপনি যদি বাজার্স কলের মাধ্যমে বিক্রি করতে চান সেটাও আপনি করতে পারেন। প্রথমে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ব্যবসাটি চালু করে পরে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আপনি এই ব্যবসায়ীকে আরো উন্নতি পর্যায়ে নিয়ে যেতে পারেন। এই ব্যবসা এটি সম্পূর্ণ নির্ভর করছে আপনার strategic এবং  marketing research এর ওপর। এ ব্যবসায় সাফল্য নির্ভর করছে আপনার খাবারের কোয়ালিটি এবং খাবারের টেস্ট এর ওপর। যদি এই ব্যবসায়টি আপনি সঠিক ভাবে পরিচালনা করতে পারেন তাহলে আপনি প্রতিমাসে ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন৷ 


রেস্টুয়ারেন্ট ব্যবসা


বর্তমান শহরে আমরা শহরের সব জায়গাতেই রেস্টরন দেখি। অনেকেই কমবেশি রেস্টুরেন্টে গিয়ে ও থাকে। যেখানে অনেক মানুষের সমাগম হয় আপনি চাইলে সেখানে একটু রেস্ট নিতে পারেন। একটি রেস্টরণের জনপ্রিয়তা তার অভ্যন্তরীণ সৌন্দর্য এবং খাবারের মানের ওপর নির্ভর করে৷ তাই যদি আপনি রেস্টুরেন্টের ব্যবসা দিতে চান তবে এই দুটি বিষয় আপনাকে অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে। 



টিফিন সার্ভিস 

খেতে কে না ভালোবাসে? বাঙালি মানেই খাদ্য প্রিয়। তাই টিফিন সার্ভিসিং একটি ভালো ব্যবসায় হতে পারে আপনার জন্য। কেননা কর্মরত ব্যক্তিরা সবাই হোটেলের খাবার খেতে পছন্দ করে না। তাই তারা বাসা থেকে খাবার নিয়ে আসে বা তেমন কোন খাবার স্থানের খোজ করে। তাই আপনি চাইলে অফিস গুলো টিফিন সার্ভিসিং করতে পারেন। আপনি ঘরে বসেই খাবার তৈরি করে তা ডেলিভারি লোক দিয়ে পাঠিয়ে দিতে পারবেন।  এতে  আপনার কষ্ট কম হওয়ার সাথে সাথে ভালো ইনকাম ও হবে।


প্রাইভেট টিউটর 

শিক্ষা প্রদান করা এই মুহূর্তে সবচেয়ে বড় ব্যবসার আইডিয়া। বর্তমান সময়ে করোনা মহামারীর কারণে স্কুল-কলেজ বন্ধ হওয়ায় প্রাইভেট টিউটর ব্যবসায়  অত্যান্ত জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে৷ এই ব্যবসায় সাহায্যে আপনি আপনার শিক্ষা ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে বিতরন করতে পারবেন ও সেখান থেকে রোজগার ও করতে পারবেন। এ ব্যবসা থেকে আপনি প্রতি মাসে ২০হাজার থেকে ৩০ হাজার টাকা ইনকাম করতে পারবেন।


স্পোকেন ইংলিশ কোচিং ক্লাস

এটি একটি দারুন বিজনেস আইডিয়া যদি আপনি কম খরচে ভালো বিজনেস করতে চান।
যদি আপনি নিজে খুব ভালোভাবে খুব স্পষ্ট করে  ইংরেজি বলতে পারেন, দক্ষ থাকেন। তাহলে আপনি অবশ্যই অন্যদেরকে শিক্ষাদান করতে পারবেন।

আজ যেকোনো জায়গায় কাজের ক্ষেত্রে ইংলিশ স্পোকেন অনেক গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই সবাই অর্থের দিকে না তাকিয়ে হলেও ইংলিশ বলায় পারদর্শী হতে চায়। তাই আপনি এই ব্যবসা করতে পারেন যদি আপনি English এ professional হয়ে থাকেন।


শেষ কথা

আমি আশা করছি আমার এই আর্টিকেলটি মাধ্যমে আপনারা  ইউনিক বিজনেস আইডিয়া - Unique  Business  Ideas  2022  সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। আর্টিকেল টি আপনাদের কেমনে লেগেছে তা আমাকে অবশ্যই কমেন্ট এর মাধ্যমে জানাবেন।আজকের ব্লগের সঙ্গেই থাকবেন।
ধন্যবাদ

Please Select Embedded Mode For Blogger Comments

Previous Post Next Post