ঘুমের একটি অভ্যাস বদল করুন, মেজাজ নিয়ন্ত্রণে রাখার কৌশল ২০২২

 আজকে আমাদের এই ব্লগ পোস্টের মাধ্যমে জানাবো কিভাবে মন মেজাজ রাখতে হয় এবং মন-মেজাজ ভালো রাখার কিছু কৌশল শেখাবো। চলুন তাহলে শুরু করিঃ

ঘুমের একটি অভ্যাস বদল করুন,sleep, ঘুম একটি অভ্যাস, ঘুমানোর অভ্যাস পাল্টালেই থাকবেন সুস্থ, ঘুমের অভাবে জেরবার, ভালো ঘুমের সাত অভ্যাস, একটি অভ্যাস, ঘুমিয়েই ভাগ্য বদল,টিপস,ঘুম,অভ্যাস,স্বাস্থ্য


বিজ্ঞানীরা বলেন একটিমাত্র নিদ্রাভ্যাস। আপনার বদলে দিতে পারে মুড। দারুণ চনমনে হবে মন। 

এই সমস্যায় অল্প বয়সের ছোট-বড় প্রায় সকলেই সঠিকভাবে পর্যাপ্ত পরিমাণ ঘুমায় না। সারারাত জেগে মুঠোফোনে আবদ্ধ থেকে একরকম ভোরবেলার দিকেই ঘুমোতে অনেকেই যান। আবার অনেকেই বলেন সহজে নাকি ঘুম আসে না! সঠিক মাত্রায় বিশ্রাম না করলে বেশ কিছু সমস্যা দেখা যায়। সারাদিনে কাজ করার জন্য শরীরে অনেক শক্তির প্রয়োজন। পর্যাপ্ত সময় না ঘুমালে প্রেসার বাড়ার সম্ভাবনা খুব বেশী। সঙ্গে চোখের তলায় কালি এবং আরও কত যে সমস্যা দেখা দেয়!


খুব সহজ, প্রতিদিন একই সময়ে ঘুম থেকে ওঠা। কারণ, ঘুম থেকে ওঠার সময় যত ভিন্ন হবে, মেজাজ তত হবে তিরিক্ষি। আর দীর্ঘ মেয়াদে বিষণ্ণতা সৃষ্টি হয়। 




যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান বিশ্ববিদ্যালয়ে ২১০০ ছাত্রের ওপর গবেষণায় দেখা গেল নিদ্রাসূচির ভিন্নতা অনিদ্রার মতোই সমান ক্ষতিকর মনমেজাজের ব্যাপারে। বিশেষজ্ঞরা বলেন, সাত ঘণ্টা বা এর চেয়ে বেশি সময় ঘুমের আছে অনেক স্বাস্থ্যহিত। 


পর্যাক্রমে যদি অনেকে তাহলে গুরুতর সব রোগ হওয়ার আশঙ্কা। চাপ কমানো আর মেজাজ ভালো করার মতো দারুণ হিত। এমনকি স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখার জন্যও উপযোগী।

তো আপনার নিদ্রাসূচি কি নিয়মিত? নিয়মিত করুন। চনমনে থাকুন। সঠিক সময়ে ঘুমাতে যান। সঠিক পরিমাণে ঘুমান। তাহলেই আপনার মন মেজাজ সবসময় হাসি খুশি ও ভালো থাকবে।

Please Select Embedded Mode For Blogger Comments

Previous Post Next Post